ফুডপান্ডার ডেলিভারিম্যানকে রামেক শিক্ষার্থীর মারধর

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে দুই শিক্ষার্থীর অসামাজিক কর্মকান্ড দেখে ফেলায় ফুডপান্ডার ডেলিভারিম্যানকে বেধড়ক পিটিয়েছে মেডিকেল কলেজের এক শিক্ষার্থীরা। পরে তাকে রামেকের ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) রাতে মেডিকেল ক্যাম্পাসের ভেতর ঘটনাটি ঘটেছে।

ভুক্তভোগীর নাম সেলিম (২১)। তিনি পুলিশের সাবেক আরআরএফ সদস্য ছিলেন। তিনি সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াস উপজেলার ভায়াহাট এলাকার মৃত সিদ্দিক মোল্লার ছেলে। কোন একটি দোষের কারণে তিনি পুলিশের চাকরি হারান। বর্তমানে তিনি রাজশাহীতে ফুড পান্ডার ডেলিভারিম্যান হিসেবে কাজ করছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ফুড পান্ডার অর্ডার অনুসারে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের পিংকু হোস্টেলে খাবার ডেলিভারি দিতে যান ডেলিভারিম্যান সেলিম। ওই সময় ক্যাম্পাসের মাঠে দুই শিক্ষার্থীকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সেলিমকে গালিগালাজ করেন। পরে ওই শিক্ষার্থী তার বন্ধুদের ডেকে তাকে বেধড়ক মারপিট করেন। এ সময় তার কাছ থেকে মোবাইল ফোনও কেড়ে নেয়া হয়। বেধড়ক মারধরের ফলে গুরুতরভাবে একটি চোখে আঘাত পান ওই রাইডার। পরে তাকে তারাই তাকে হাসপাতালের ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছন রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাজহারুল ইসলাম।

তিনি বলেন, এধরনের একটি ঘটনার কথা শুনেছি। তবে কেউ এবিষয়ে কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে তা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়েছে কিনা তা জানতে চাইলে তিনি তা অস্বীকার করেন।

জানতে চাইলে ভুক্তভোগীর স্ত্রী মুঠোফোনে প্রতিবেদককে জানান, গতকাল রাতে আমার স্বামী মেডিকেল ক্যাম্পাসে ফুড পান্ডার ডেলিভারি দিতে গেলে কয়েকজন শিক্ষার্থী মেরে গুরুতর আহত করেছেন। আজ দুপুরের দিকে তাকে বাসায় নিয়ে আসা হয়েছে। বর্তমানে তিনি রেস্ট নিচ্ছেন।

তিনি বলেন, এবিষয়ে আমরা আর কোন ঝামেলায় জড়াতে চাই না, কোন মামলাও করতে চাই না।

এফএ/অগ্নিবাণী

এই সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on Whatsapp
Whatsapp
Pin on Pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *