বিজয় দিবসে ৫০ বর্ষপূর্তিতে রামেবির র‌্যালি-শ্রদ্ধাঞ্জলি

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রামেবি) উদ্যোগে বিজয় দিবসের ৫০ বর্ষপূতি উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) সকাল থেকেই রামেবি ক্যাম্পাস সহ নগরীর লক্ষিপুর মোড়ে বিজয় দিবস পালনে র‌্যালি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুলের তোরা দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়েছে। এছাড়া দিনব্যাপী আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রামেবি) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. এ জেড এম মোস্তাক হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. রুস্তম আলী আহমেদ। অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক ছিলেন রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রফেসর ড. আবুল কাশেম।

অনুষ্ঠানে রামেবির উপাচার্য অধ্যাপক ডা. এ জেড এম মোস্তাক হোসেন বলেন, ৩০ লাখ শহীদ ও দুই লাখ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত এই স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর এই দিনে বিনম্র চিত্তে স্মরণ করছি শহীদদের। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা বিজয়ের ৫০ বছরে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে এসেছেন সাফল্যের বৃত্তের মধ্যে। আর্থ-সামাজিক উন্নয়নসহ সবক্ষেত্রেই আজ বাংলাদেশের অভাবনীয় ও অনুকরণীয় সফলতা। স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে গর্বিত জাতি হিসেবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীও একই বছর পালন করা হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু অবিচ্ছেদ্য অংশ । হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পাকিস্তানি শাসকদের শোষণ ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে এক রক্তক্ষয়ী মুক্তিসংগ্রামের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে বিশ্বের বুকে স্বতন্ত্র জাতিসত্তা বাঙালি জাতির রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়।

এছাড়াও অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিলো- রামেবির অস্থায়ী কার্যালয়ে সূর্যদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তালোন, সকাল ৮ টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মোনাজাত, সকাল ৯ টায় বিজয় র‌্যালি, সকাল ১০ টায় আলোচনা সভা, রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ, চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার আধ্যাপক ডা.আনোয়ারুল কাদের, পরিচালক (প.উ.) ইঞ্জিনিয়ার মো: সিরাজুম মুনির, পরিচালক (অ.হি.) ডা. মো: জাকির হোসেন খোন্দকার, উপ-রেজিস্ট্রার ডা. আমিন আহমেদ খান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ডা. মো. আনোয়ার হাবিব, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডা. মো: সারওয়ার জাহান, উপ- কলেজ পরিদর্শক ডা. মোহাম্মদ মেহেরওয়ার হোসেন, শুভেন্দু দত্ত, সেকশন অফিসার, মো: রাসেদুল ইসলাম, লিয়াজোঁ ও প্রটোকল অফিসার মো. ইসমাঈল হোসেন, কবির আহমেদ, মো: আব্দুস সোবহান, সেকশন অফিসার মো: নাজমুল হোসাইন, মোসা: সিমা আক্তার, মেহেদী মাসুদ সানি, মো: আশরাফুল ইসলাম, মো: মেহেদী হাসান, নাজমুল আলম ইমন, মো: গোলাম রহমানসহ বিভিন্ন নাসিং কলেজের অধ্যক্ষ, শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ।

এফআ/অগ্নিবাণী

এই সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Pin on Pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published.