উদ্বোধনের পূর্বেই স্থগিত রাজশাহী বইমেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

উদ্বোধনের পূর্বেই স্থগিত করা হয়েছে রাজশাহী জেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজত রাজশাহী বইমেলা। নগরীর কালেক্টরেট মাঠে ১ থেকে ৫ এপ্রিল আয়োজন করার কথা ছিল রাজশাহী বইমেলার। কিন্তু দেশে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় রাজশাহী বইমেলা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। মূলত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ৫ দিনের এ বই মেলার আয়োজন করা হয়েছিল।

বইমেলাটির আয়োজনে ছিল রাজশাহী জেলা প্রশাসন। এতে পৃষ্টপোষকতা করছে জাতীয় গ্রন্থাগার ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মেলা শুরু থেকে প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত বইমেলাটি সকলের জন্য উন্মৃক্ত ছিল।

তবে শুক্রবার (০২ এপ্রিল) বিকালে রাজশাহী জেলা প্রশাসক বইমেলার স্থগিতকরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে জাগো নিউজের প্রতিবেদককে।

তিনি বলেন, ‘মন্ত্রণালয় থেকে ২৯ তারিখে চিঠি আসে করোনার নিয়ন্ত্রনের বিষয়ে। এতে জনসমাগম সীমিত রাখা ও মাস্ক পরিধানপূর্বক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে নির্দেশনা কিছু নির্দেশনা আসে। এরই প্রেক্ষিতে ৩১ মার্চ একটি জরুরী মিটিং হয়। এতে সিদ্ধান্ত হয়- কোনো মেলাই হবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘মূলত করোনার কারণেই বইমেলা উদ্বোধনের আগেই স্থগিতাদেশ প্রদান করা হয়েছে।’

সূর্যকিরণ সংস্থায় সেচ্ছাসেবী হিসেবে কর্মরত কিশোর জুলফিকার নাঈম বলেন, ‘খুব আশা করে বসে ছিলাম বইমেলা হলে হয়ত সেটা উপভোগ করব। আর নিজের পচ্ছন্দের বেশ কিছু বইও কিনব। কিন্তু করোনায় তা ভেস্তে গেলো। এখন অপেক্ষা ছাড়া কিছুই করার নেই।’

বইমেলা স্থগিত হওয়ায় দু:খ প্রকাশ করেছেন রাজশাহী কেন্দ্রীয় কিশোর পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক মো. সোহাগ আলী। তিনি বলেন, ‘দিন যত গড়াচ্ছে শিশু কিশোরেরা যান্ত্রিকতায় ঝুঁকে পড়ছে। এই যান্ত্রিকতা থেকে বের হয়ে আসার ভালো উপায় হচ্ছে- খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চা। বই হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম। বইমেলাটি হলে হয়তবা অনেক শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী মেলায় গিয়ে বই কিনতো এবং বইয়ের মধ্যে থাকা মজা উপলব্ধি করত। আশা করি করোনার প্রকোপ কাটিয়ে অচিরেই যেনো স্থগিত বইমেলার পুন:আয়োজন হয়।’

এদিকে রাজশাহী বইমেলা স্থগিতের বিষয়ে বিভাগীয় কমিশনার ড. মো. হুমায়ুন কবীর বিভিন্ন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সরকারের প্রজ্ঞাপনের নির্দেশনার মধ্যে মেলা আয়োজন স্থগিত রাখার কথা বলা হয়েছে। তাই মেলাটি আপাতত স্থগিত থাকবে। ১৪ দিন পরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে, পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এছাড়াও করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জনসাধারণকে পর্যটন, বিনোদন কেন্দ্র, সিনেমা হল, থিয়েটারসহ গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরিধান করে জনসমাগম সীমিত রাখার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার।

অগ্নিবাণী/এফএ

এই সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Pin on Pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *