বাঘায় মারধরের স্বীকার শিক্ষক-পুলিশ, আটক ৫

শাহিনুর রহমান বাবু, বাঘা

রাজশাহীর বাঘায় স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত হয়েছে মেলা। সে মেলায় বিনোদনের জন্য ডিজিটাল কনসার্টেরও আয়োজন করা হয়। কনসার্ট চলাকালীন নারী দর্শকের গ্যালারিতে আসার চেস্টা করে। এতে বাধা দেওয়ায় সেখানে এক শিক্ষকসহ পুলিশদের মারধর করে উৎশৃঙ্খল বখাটেরা। শুধু পুলিশ মারধরই নয়, রাস্তা অবরোধ করে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বাঘাগামী সুপার সনি যাত্রীবাহী বাসের সামনের ও পাশের জানালাও ভাঙচুর করে তারা।

সোমবার (২৯ মার্চ) দুপুরে উপজেলার চন্ডিপুর বাজার এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে। এই ঘটনায় এক নারিসহ ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সূত্র জানায়, উপজেলার চন্ডিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দুইদিন ব্যাপি মেলা ও ডিজিটাল কনসার্টের আয়োজন করা হয়। গত ২৭ শে মার্চ রাতে দর্শক সারির উচ্ছৃখল কিছু যুবক নেশাগ্রস্থ অবস্থায় নারিদের গ্যালারি প্রবেশের চেষ্টা করে। শৃঙ্খলা রক্ষায় আয়োজক কমিটির সদস্যরা তাদের বাঁধা দেয়। এর পরেও তারা শক্তি প্রয়োগ করে প্রবেশ করতে যায় । তাদের অসদাচরণে ক্ষিপ্ত হয়ে কমিটির লোকজন মিলিকবাঘা গ্রামের নয়ন ও রাব্বিসহ ডাঙ্গা পাড়া এলাকার সোহেল রানাকে চড় থাপ্পড় দিয়ে সেখান থেকে বের করে দেয়। এর জের ধরে পরের দিন রোববার (২৮মার্চ) স্থানীয় একটি ব্যংকে টাকা জমা দিতে যাবার পথে উপজেলা সদরে মাজার গেট এলাকায় পথরোধ করে চন্ডিপুর গ্রামের অন্তর আলী নামের এক যুবককে মারধোর করে বিতারিতরা। এই ঘটনায় ঐ যুবকের মা বাদি হয়ে মিলিকবাঘা গ্রামের দুই যুবক, রবি ভান্ডারীর ছেলে মোহাম্মাদ রাব্বি (২০) রফিকুল ইসলামের ছেলে নয়ন আলী (২০) ও চন্ডিপুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানা (২৮) এর বিরুদ্ধে লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে মারপিট করে ৯৫ হাজার টাকার ব্যাগসহ ২২ হাজার টাকা মূল্যের দু’টি মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ দেন।

সোমবার (২৯ মার্চ) দুপুরে একই ঘটনার জের ধরে চন্ডিপুর গ্রামের মুজিবুর রহমানের ছেলে আব্দূল গণি কলেজের শিক্ষক আরিফুল ইসলামকে জোতরাঘব কমিউনিটি ক্লিনিক এলাকায় তাকে লোহার রড়, হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে, আগের অভিযুক্তরাসহ ৬/৭ জনের একটি দল।

কলেজ শিক্ষককে মারপিট করার ঘটনাটি জানাজানি হলে চন্ডিপুর বাজার এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বিক্ষুদ্ধ জনতা রাস্তা অবরোধ করে সুপার সনি (ঢাকা মেট্রো ব ১৫-৫২৫১) একটি যাত্রীবাহী বাস ও একটি থ্রি হুইলার(সিএনজি) ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। এ সময় কনষ্টেবল সাগর, বিদ্যুৎ, রিপা, ডিএসবি’র এসআই নুরুজ্জামান, স্থানীয় মোশারফ হোসেন, আরিফুল ইসলাম, বাসের ড্রাইভার সাইফুল ইসলাম আহত হয়েছে।

আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এই ঘটনায় এক নারিসহ ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন-বড় ছয়ঘটি গ্রামের মিলন হোসেন (৪০), শরিফুল ইসলাম (৪২), বাবুল হোসেন (৪৫), সাব্বির হোসেন (২৭), মিলিয়ারা খাতুন (৪০)।

মেলা ও ডিজিটাল কনসার্ট আয়োজক কমিটির সভাপতি ও বাজুবাঘা ইউনিয়ন আওয়ামলীগের সভাপতি ফজলুর রহমান জানান, বাঘা সদরের কিছু উচ্ছৃখল ছেলেদের ধৃষ্টতাপূর্ণ আচরণের হামলা শিকার হয়েছে কলেজ শিক্ষকসহ কয়েকজন। যার জের ধরে এলাকার বিক্ষুদ্ধ জনতা অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটিয়েছে।

দলীয়সূত্রে, নয়ন আলী, রাব্বিসহ অন্যরা বাঘা পৌর আওয়ালীগের এক নেতার মদদপুষ্ট বলে জানা গেছে।

বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আব্দুল বারী ঘটনা সত্যতা শিকার করে বলেন, এই ঘটনায় পৃথক দুটি মামলার প্রস্ততি চলছে। এর একটি পুলিশের পক্ষ থেকে আর একটি ভূক্তভূগি পাবলিক এর পক্ষ থেকে।

শারব/বা/রা/এফএ

এই সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Pin on Pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *