বদলগাছীতে ব্যস্ত সময় যাচ্ছে প্রতিমা কারিগরদের

আবু জর গিফারী, বদলগাছী

নওগাঁর বদলগাছীতে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা কারিগররা। দম ফেলার ফুরসত নেই তাদের।

সনাতন ধর্মের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয়া দূর্গাপূজা। আগামী ২২ অক্টোবর ষষ্ঠী তিথিতে শুরু হবে এ পূজা এবং ২৬ অক্টোবর দশমী তিথিতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে।

মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে এবারের দূর্গাপূজায় উৎসবের আমেজ কিছুটা কম পরিলক্ষিত হচ্ছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী পূজা মন্ডপগুলোতে আলোক সজ্জাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবে না। পূজোয় মন্দিরে মন্দিরে ঘুরতে যাওয়াও মানা। পুরো উৎসবেই থাকবে স¦াস্থ্যবিধির কড়া নির্দেশনা।

উপজেলার বিভিন্ন পূজামন্ডপ ঘুরে দেখা যায়, প্রতিমা কারিগররা তাদের তুলির শৈল্পিক ছোঁয়ায় দূর্গাসহ অন্যান্য প্রতিমা গুলোকে রঙিন সাজে সাজিয়ে দিচ্ছেন। অত্যন্ত সু²ভাবে কাজ করছেন তারা। দম ফেলার সময় নেই তাদের।

চুয়াডাঙ্গা থেকে বদলগাছী কেন্দ্রিয় দূর্গা মন্দির ও আশ্রমে প্রতিমা তৈরি করতে আসা কারিগর অমল পাল বলেন, ৪০ বছর ধরে প্রতিমা তৈরির কাজ করছি। এ বছর দুই জন সহযোগী নিয়ে ৫ টি মন্দিরে প্রতিমা তৈরির কাজ হাতে নিয়েছি। শেষ মুহূর্তে এসে দিন-রাত সমান তালে কাজ করতে হয়। এ সময় আমাদের দম ফেলারও সময় থাকে না।

তিনি জানান, ধরণ ভেদে দূর্গাপূজার প্রতি সেট প্রতিমা তৈরি করতে ১৫-২০ হাজার টাকা মজুরি নেন। দূর্গাপূজার সময়টাতে মোটামুটি ভালো আয় হয়। কিন্তু সারা বছর কষ্ট করে তাদের সংসার চালাতে হয়। কারণ বাংলাদেশে মৃৎশিল্পের চাহিদা বর্তমানে অনেক কম।

উপজেলার বালুভরা ইউপির কোমারপুর হাটখোলা বাজারে অস্থায়ী দূর্গা মন্দিরে প্রতিমা তৈরির কারিগর দুলাল পাহান বলেন,আমরা এখানে পাঁচজন মিলে প্রতিমা তৈরির কাজ করছি। সময় লাগে প্রায় এক মাস। তাতে আমরা মজুরি পেয়ে থাকি ২৫ হাজার টাকা। এ সময়টাতে আয় রোজগার বেশি হলেও বছরের বাকি সময়টাতে ছোট-খাটো মূর্তি তৈরি করে অনেক কষ্টে সংসার চালাতে হয়।

বদলগাছী উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি দেব প্রসাদ দেশমূখ্য বলেন, এ বছর ৯২ টি মন্দিরে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। করোনা ভাইরাসের কারণে এবার স¦াস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করতে হবে। এ সম্পর্কিত সরকারি নির্দেশনা গুলো আমাদের মেনে চলতে হবে।

বদলগাছী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী পূজামন্ডপ গুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার থাকবে। প্রতিটি ইউনিয়নে আলাদা আলাদা টহল পুলিশের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যেকোন ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে আমাদের সর্বত্মক প্রস্তুতি রয়েছে।

বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাঃ আবু তাহির বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে এবারের দূর্গাপূজা স¦াস্থ্যবিধি মেনে এবং সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী উদ্যাপন করতে হবে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Pin on Pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *