আপত্তিকর অবস্থায় নেতা ধরা খেলেন ছাত্রলীগ নেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিজ বাড়িতে কলেজছাত্রীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়েছেন পাবনার ঈশ্বরদী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল ইসলাম শাওন (২৩)। বুধবার দুপুরে পাবনা ঈশ্বরদী শহরের ঈদগাহ রোডের বাড়ি থেকে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

তবে নানা নাটকীয়তার মধ্যে দিয়ে ঘটনার ৩ ঘণ্টা পর বিকাল ৫টায় ছাত্রলীগ নেতা শাওন ও কলেজছাত্রীকে পাবনা আদালতে প্রেরণ করা হয়। শাওন ওই এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে। আর ওই কলেজছাত্রীর বাড়ি পাবনা সদর থানার দাপুনিয়ায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, ছাত্রলীগ নেতা শাওন প্রায়ই তাঁ বাড়িতে উঠতি বয়সী বিভিন্ন মেয়ে ও ছাত্রীদের নিয়ে এসে অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছিলেন । বুধবার দুপুরে বাবা-মা ও বোন বাড়ির বাহিরে যান। তখন শাওন ঈশ্বরদী সরকারি কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ছাত্রীকে তার বাড়িতে নিয়ে এসে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হন।

তখন স্থানীয়রা শাওনের বাড়িতে ঢুকে ঘরের দরজা বন্ধ দেখতে পান ও তাদের অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত অবস্থায় আটক করেন।

তারা অভিযোগ করে আরো জানান, ঘটনার সময় শাওন উপস্থিত স্থানীয়দের দেখে নেওয়াসহ নানা রকম হুমকি দেন। মহুর্তের মধ্যে খবরটি শহরে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ জমায়েত হন।

পরে অবস্থার বেগতি দেখে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

আটক পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম শাওন জানান, মেয়েটি তার বান্ধবী। তারা একই কলেজে লেখাপড়া করেন। ঘটনার সময় মেয়েটি তার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলো। মেয়েটির সঙ্গে তার অনৈতিক কোনো সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেন।

তবে আটক কলেজছাত্রীটি জানান, শাওনের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এই সম্পর্ক ধরেই এর আগেও সে শাওনের বাড়িতে এসেছেন বলে দাবি করেন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ঈশ্বরদী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুমন দাশ জানান, বিষয়টি নিয়ে আমরা বিব্রত। মর্মাহত। লজ্জিত।

ছাত্রলীগের কোনো নেতার এই ধরণের কার্যকলাপ সংগঠনের জন্য খুবই লজ্জাকর ও ভয়ংকর। আটক শাওনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী বলেন, স্থানীয় জনগণ অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকা অবস্থায় ছাত্রলীগ নেতা শাওন ও কলেজছাত্রীকে আটক করে থানায় খবর দেন।

পুলিশ তাদের আটক করে থানায় আনে। তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়েরের মাধ্যমে পাবনা জেলা হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাওন ও ওই কলেজছাত্রীকে ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য রাজনৈতিকভাবে কয়েক ঘণ্টা ধরে দেন দরবার করা হয়।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Pin on Pinterest
Pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *